সোনাইমুড়ীতে সন্ত্রাসী হামলায় মুদি দোকানি  নিহত, আটক ২ 

0 ২৭০

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে সন্ত্রাসী হামলায় রাহাত হোসেন নামে (২০) এক মুদি দোকানি নিহত হয়েছে। নিহত রাহাত হোসেন পাশ্ববর্তী মনোহরগঞ্জ উপজেলার বিপুলাসার ইউনিয়নের জাওড়া মিজি বাড়ির ফজলুল হকের ছেলে।
মঙ্গলবার ভোর ৫টায় উপজেলার চাষিরহাট ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।
এঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মেহরাব হোসেন ভুট্টো ও হিজবুত তওহীদ নেতা মহিনকে আটক করেছে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, পূর্বশত্রুতার জের ধরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মেহরাব হোসেন ভুট্রো ও হিজবুত তাওহীদের নেতা মহিন উদ্দিনের নেতৃত্বে পোরকরা পশ্চিম পাড়ার মো. কালা, মিলন, নান্টু, শাকিলসহ একদল মুখোশধারী সন্ত্রাসী মঙ্গলবার ভোর ৫টায় সিএনজি ও মোটরসাইকেল যোগে কাবিলপুর উত্তরপাড়ায় হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা হাজ্বী সুপার মার্কেটে আগুন ধরিয়ে দেয়, খবর পেয়ে মুদি দোকানি রাহাত হোসেন ঘটনাস্থলে আসলে সন্ত্রাসীরা তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট করে হত্যা করে। সে কাবিলপুর নানার বাড়িতে থেকে ব্যবসা-বাণিজ্য করতো।
নিহতের পিতা ফজলুল হক জানান, দোকানে আগুন ধরিয়ে দেয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসলে সন্ত্রাসীরা তার ছেলেকে পিটিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট করে হত্যা করে। তিনি হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
প্রসঙ্গত: গত ২৮ মার্চ চাষির হাট ইউনিয়নের পৌরকরা পশ্চিম পাড়ার একদল যুবক তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একই ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামবাসীর উপর ও মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা চালায়। ওই সময় গণপিটুনিতে পৌরকরা গ্রামের ইব্রাহিম খলিল সুমন নামে এক যুবক আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এঘটনার জেরে মঙ্গলবার ভোর ৫টায় পোরকরা পশ্চিম পাড়ার নুরুল হক মেম্বারের ছেলে ও হিজবুত তাওহীদের এমাম সেলিমের ছোট ভাই মহিন উদ্দিন ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মেহরাব হোসেন ভুট্টাের নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়।

সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস সামাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার মূল হোতা মহিন উদ্দিন ও মেহরাব হোসেন ভুট্টােকে আটক করা হয়েছে। অন্য যারা জড়িত আছে তাদেরও ধরার চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।