সেই জিতেন কান্তিকে হাসপাতালে দেখতে গেলেন আমিন

23

চট্টগ্রামের পটিয়ায় হামলার শিকার উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা জিতেন কান্তি গুহকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন দলটির কেন্দ্রীয় উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

রোববার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জিতেন কান্তিকে দেখতে যান তিনি। এ সময় জিতেনের শয্যা পাশে বসে চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসার খোঁজ নেন আমিন।

 

 

তিনি বলেন, হামলাকারী যেই হোক তার কোনো রাজনৈতিক পরিচয় বিবেচনা করা হবে না।‌ অপরাধীর কঠিন শাস্তি পেতে হবে। শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগে সন্ত্রাসী, অপরাধীদের ঠাঁই নেই।

ইফতার অনুষ্ঠানের ব্যানারে হাইদগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বদরুউদ্দিন মোহাম্মদ জসীমের নাম না থাকায় তার লোকজন গত শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) উপজেলার পূর্ব হাইদগাঁও গাউছিয়া কমিউনিটি সেন্টারের সামনে পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা জিতেন কান্তি গুহকে গাছে বেঁধে মারধর করে।

আহত জিতেন কান্তিকে প্রথমে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গাছে বেঁধে জিতেন কান্তি গুহকে মারধরের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এরপর থেকে বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে হাইদগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জসীমসহ তার ছেলেকে গ্রেপ্তার করে।

আরও পড়ুন

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.