নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ গোলাগুলিতে শিশু গুলিবিদ্ধসহ আহত অর্ধশত

138

নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের মধ্যে রক্তক্ষয়ী বন্দুকযুদ্ধে শিশুসহ গুলিবিদ্ধ হয়েছে ১২ জন। আজ মঙ্গলবার বিকালে খলিফারহাট বাজারে এ সংঘষে আহত হয়েছেন ৫০ জন।
এলাকাবাসী জানায়, নোয়াখালীর সদর উপজেলার দাদপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবৃদ্ধ ১২ হয়েছেন। এ সময় স্থানীয় খলিফারহাট বাজারের বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। গুলিবিদ্ধরা হলেন, সোলাইমান (২৮), সুমন (২৩), মো. জসিম (৪৫), অহিদ উল্যা (৩০), মাসুদ (৩৫), মঞ্জু (২২), শান্ত (১০), জিয়া (২০), মনির আহম্মদ (৬০) ও সবুজ (২৩)।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, দাদপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও যুবলীগ নেতা জহির উদ্দিনের উপর হামলার ঘটনায় জহিরের দায়েরকৃত মামলায় মঙ্গলবার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক রফিকুল ইসলাম রাসেল সহ ৭জন আদালতে জামিন চাইতে গেলে আদালত রাসেল সহ ৩জনের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠান। আদালত থেকে বের হয়ে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান শিপনসহ অন্য আসামীরা সিএনজি যোগে এলাকায় ফেরার পথে খলিফারহাট বাজার সংলগ্ন কসাই বাড়ির সামনে তাদেরকে লক্ষ্য করে একদল সন্ত্রাসী গুলি ছুড়লে তারা গুলিবিদ্ধ হয়। এসময় সন্ত্রাসীরা বাজারের বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়।
উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান শিপন জানান, বিকাল ৪টায় মাইজদী থেকে এলাকায় ফেরার পথে স্থানীয় সন্ত্রাসী কসাই জহির, রশিদ, রাসেল ও রহিমের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাদের উপর অতর্কিত গুলি চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা খলিফারহাট বাজারের ৫০টিও উপরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর চালিয়ে লুটপাট করে বলেও অভিযোগ করেন শিপন। সুধারাম মডেল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মানবজমিনকে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

বিশেষ মেহমান হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন বিএম এর নোয়াখালী জেলার সভাপতি ডাঃ এম এ নোমান,চাটখিল কামিল (এম.এ) মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও উপজেলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া।

চাটখিলে ডিয়ার ছোয়াদ এজেন্সির হজ্জ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মেহেদী হাছান (রুবেল ভূঁইয়া) উপস্থিত নেতৃবৃন্দকে প্রতিষ্ঠানের চলমান উন্নয়ন এবং মাঠ সম্প্রসারণের কাজ সম্পর্কে অবগত করেন এবং মাদ্রাসা ক্যাম্পাস ঘুরিয়ে দেখান।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসার উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন-এইচ এম ইব্রাহিম

মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া বলেন,ঐতিহ্যবাহী চাটখিল কামিল মাদ্রাসা একটি শতবর্ষী প্রতিষ্ঠান।জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এ প্রতিষ্ঠানটি উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসা শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১টার দিকে বাতাসে লাশের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন দুর্গন্ধের উৎস খুঁজতে থাকে। খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে লামচর গ্রামের সর্দার বাড়ি সংলগ্ন ডোবায় অর্ধগলিত একটি মরদেহ দেখতে পায় তারা।

চাটখিলে বৃদ্ধের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

বেলায়েত হোসেন আশা করেন দলীয় নেতৃবৃন্দ ও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় সর্বসাধারনের ভালোবাসায় তিনি বিপুল ভোটে চাটখিল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন।

চাটখিলে সাংবাদিকদের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী বেলায়েত এর মতবিনিময়

Comments are closed.