সোনাগাজীতে ৯৫ বীর মুক্তিযোদ্ধার বৈধতা যাচাই হচ্ছে

0 38

ফেনীর সোনাগাজীতে ১৫৪ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার বৈধতা যাচাই করার কথা থাকলেও এর মধ্যে ৫৯ জনের লাল মুক্তিবার্তা বই ও ভারতীয় তালিকায় নাম থাকায় তাদের বৈধ ঘোষণা করেছে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা)। বিজিবির তিন সদস্যসহ বাকি ৯৫ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার বৈধতা যাচাই কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

শনিবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হয়েছে বৈধতা যাছাইয়ের কার্যক্রম। সোমবার পর্যন্ত টানা তিনদিন তাদের সাক্ষাৎকার নেবে এ সংক্রান্ত গঠিত কমিটি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব।

ইউএনও অজিত দেব ছাড়াও এই কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) প্রতিনিধি মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আমিন, জেলা প্রশাসকের পক্ষে প্রতিনিধি সামছুল হুদা ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি জসিম উদ্দিন।

উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. নাছির উদ্দিন বলেন, সোনাগাজী উপজেলায় মোট বীর মুক্তিযোদ্ধা ৬০৬ জন। এর মধ্যে তালিকাভুক্ত ৫৭৯ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা নিয়মিত ভাতা পাচ্ছেন। জাতীয় পরিচয়পত্রসহ বিভিন্ন দলিলের ত্রুটি থাকায় বাকি ২৭ জনের ভাতা দীর্ঘ দুই বছর ধরে স্থগিত রয়েছে।

সূত্র জানায়, যাচাইয়ের জন্য পাঠানো তালিকায় যাদের নাম রয়েছে তাদের মুক্তিযোদ্ধা গেজেটে অন্তর্ভুক্তিতে জামুকার অনুমোদন ছিল না। এজন্য শনিবার তাদের অবশ্যই যুদ্ধকালের তিনজন সহযোদ্ধাকে হাজির করতে হবে। একই সঙ্গে বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে প্রয়োজনীয় দলিল আনতে হবে।

বৈধতা যাচাইয়ের তালিকায় নাম থাকা মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের জানান, তিনি যুদ্ধের সময় সামরিক বাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়ে দেশ স্বাধীন করেছেন। তার সব ধরনের দলিল সঠিক থাকার পরও যাচাইয়ের তালিকায় তার নাম থাকায় তিনি বিস্মিত। তার যুদ্ধকালীন কমান্ডার এবং সহযোদ্ধারা এখনও বেঁচে আছেন। কমান্ডারকে নিয়ে তিনি যাচাই কমিটির সামনে হাজির হন। তিনি আশা করছেন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বৈধতা ফিরে পাবেন।

আরেক মুক্তিযোদ্ধা মো. কবির আহম্মদ জানান, তার পরিচয়পত্রে বাবার নামে একটা অক্ষর ভুল আসায় তাকেও যাচাই-বাছাই কমিটির মুখোমুখি হতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব বলেন, তালিকার বেশিরভাগের নাম মুক্তিযুদ্ধের পর প্রকাশিত তালিকায় বা ভারতীয় তালিকায় নাম রয়েছে।

তবে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বৈধতা যাচাইয়ের জন্য পাঠানো তালিকায় ১৫৪ জনের মধ্যে ৫৯ জনের লাল মুক্তিবার্তা বই ও ভারতীয় তালিকায় নাম রয়েছে। বিজিবির তিন সদস্যসহ ৯৫ জনের বীর মুক্তিযোদ্ধার বৈধতা যাচাই করা হচ্ছে। এর মধ্যে যাদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্রে ঘাটতি থাকবে তাদের তালিকা তৈরি করে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন

গণমাধ্যমে তথ্য প্রদানে নিষেধাজ্ঞা জারি সংবিধানের মৌলিক অধিকার পরিপন্থী।

তথ্য প্রদানে নিষেধাজ্ঞা,গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় সরাসরি হস্তক্ষেপ : ব্যারিস্টার মাহবুব…

ফজলুর রহমান মধু (৩৬) নোয়াখালী চাটখিল উপজেলার খিলপাড়া ইউনিয়ন শ্রীপুর গ্রামের সাব মিয়ার ছেলে।

পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী অথচ মানতে নারাজ এলাকার মানুষ

তিনি গত বছরের ১৬ মে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেনের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

ভারতীয় কোম্পানি সিরামকে বাড়তি সুবিধা দিতে গিয়ে ভ্যাকসিন নিয়ে আজকে জটিলতা তৈরি হয়েছে।

ব্যর্থতার দায়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর এখনই পদত্যাগ করা উচিৎ : ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন…

বিএনপির উপজেলা কার্যালয়ে হামলা করে জিয়াউর রহমান ও বেগম খালেদা জিয়ার ছবি ভাঙচুর কারীদের এই আহবায়ক কমিটির শীর্ষ পদে আসীন করার অভিযোগ।

নোয়াখালীতে যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে ক্ষোভ-অসন্তোষ

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।