সেনবাগে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ, আটক-১

91

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার কেশারপাড় ইউনিয়নে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক ছাত্রী (৯)। ঘটনায় ধর্ষক নূর হোসেন (২৩) কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনগণ।
বৃহস্পতিবার দুপুরে ধর্ষককে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। আটককৃত নূর হোসেন কেশারপাড় ইউনিয়নের ঠনারপাড় গ্রামের সালাহ উদ্দিনের ছেলে। সে পেশায় অটোরিকশা চালক।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুরে লেমুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হয় ওই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ভিকটিম (৯)। পথে অটোরিকশা চালক নূর হোসেন ভিকটিমকে ফুঁসলিয়ে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে তার ঘরের একটি কক্ষে নিয়ে জোরপূর্বক ভিকটিমকে ধর্ষণ করে। এসময় চিৎকার করলে রক্তাক্ত অবস্থায় ভিকটিমকে রেখে পালিয়ে যায় নূর হোসেন।
পরে ভিকটিম বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি তার মাকে জানায়। তার মা বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রহমানকে অবগত করলে তিনি গ্রাম পুলিশ হানিফকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে রাতে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ধর্ষক নূর হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হারুন অর রশিদ চৌধুরী জানান, প্রাথমিকভাবে ভিকটিমকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। ধর্ষক নূর হোসেনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.