সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে হার্ট ফেইলিউর ক্লিনিক উদ্ধোধন

209

রাজধানীর মৌচাকের অবস্থিত ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে এন্ড হসপিটালে হার্ট ফেইলিউর ক্লিনিক উদ্ধোধন করা হয়েছে।
সোমবার দুপুর একটার দিকে এর শুভ উদ্ধোধন করেন ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. এমএ আজিজ বলেন,বর্তমান সরকার জনগণের দৌড় গোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পে^ৗছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। অল্প সংখ্যক চিকিৎসক দিয়ে বিশাল জনগোষ্ঠীকে সেবা দিতে গিয়ে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো হিমছিম খাচ্ছে। জনসাধারণেল স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সরকারের সাথে তাল মিলিয়ে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, দিন দিন দেশে হৃদরোগ ও স্ট্রোক আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির অন্যতম কারণ সচেতনতার অভাবে। এই অসচেতন জনগোষ্ঠীকে সচেতন করার লক্ষ্যেই ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে ‘হার্ট ফেইলিউর ক্লিনিক’ চালু করা হল।এছাড়াও ইতিমধ্যেই বাংলাদেশে প্রথম হাসাপাতাল হিসেবে একটি স্ট্রোক সেন্টার চালু করা হয়েছে।
ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে নব উদ্ধোধিত হার্ট ফেইলর ক্লিনিকের ইনচার্জ হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আশরাফুল ইসলাম এই ক্লিনিকের কার্জক্রম বিস্তারিত তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, বিশেষজ্ঞদের মতে হার্ট ফেইলিউরের চিকিৎসা মাল্টিডিসিপ্লিনারি হওয়া উচিত, যা কার্ডিওলজিস্ট, ইন্টার্নিস্ট, রেসপিরেটরী চিকিৎসক, প্যারামেডিক্স, নার্স, পুষ্টিবিদ এবং সামাজিক কর্মীদের অন্তর্ভুক্ত করবে। এটি শুধুমাত্র ‘হার্ট ফেইলিওর ক্লিনিক’ দ্বারা করা সম্ভব, যেমন ডায়াবেটিস সেন্টার।

তিনি বলেন, আমাদের ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের এই হার্ট ফেইলিউর ক্লিনিকের সেবা রোগী চেইন আকারে সারাজীবন পেয়ে যাবেন। হার্ট ফেইলর ক্লিনিকের মাধ্যমে একজন রোগী সব সময় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। একবার রেজিস্ট্রেশন করলে রোগীরা আজীবন সেবা পেতে পারবেন। একজন রোগীর সমস্ত স্বাস্থ্যগত হিস্ট্রি আমরা অনলাইন ও হার্ট কপি আকারে সংরক্ষণ করা হবে। যাতে রোগীর সম্পর্কে তাৎক্ষণিক সেবা দেওয়া যায়। এজন্য আমাদের দুজন নার্সকে ‘এমেরিকান হার্ট ফাউন্ডেশন থেকে প্রশিক্ষণ করিয়ে আনা হয়েছে। পাশাপাশি প্রতি সোমবার বিকাল ৫ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত রোগীদেরকে সরসারি কনসাল্টিং করা হবে। একবার কনসাল্টিং করার রোগীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর রাখবে এই হার্ট ফেইলর ক্লিনিক।
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজেসের (এনআইসিভিডি) সহযোগী অধ্যাপক ডা. প্রদীপ কুমার কর্মকার বলেন, হার্ট ফেইলিওর এখন বিশ্বজুড়ে একটি মারাত্মক ব্যাধি। মানুষের স্বাস্থ্য এবং আর্থিক সুস্থতার জন্য এটি হুমকি। এটি ৬০ থেকে ৮৬ বছর বযসী ৬% লোককে প্রভাবিত করে। হৃদরোগের ব্যক্তিগত, অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্যসেবার বোঝা ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশঙ্কা রয়েছে। বাংলাদেশের মতো দেশে সংক্রামক রোগ হ্রাসের পাশাপাশি অনিয়ন্ত্রিত অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধ ও ব্যবস্থাপনা প্রধান উদ্বেগ হয়েছে উঠেছে।
তিনি বলেন, প্রায় সব ধরনের অসংক্রামক রোগ যেমন হাইপারটেনশন, ডায়াবেটিস, ইস্কেমিক হার্ট ডিজিস, ক্রনিক কিডনি ডিজিস ইত্যাদির শেষ পরিণতি হলো হার্ট ফেইলিওর। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট জনসংখ্যার ১.৯% হার্ট ফেইলিউরে আক্রান্ত। বাংলাদেশে এর কোন তথ্য নেই। ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডকেল কলেজে স্থাপিত হার্ট ফেইলর ক্লিনিক এই রোগ প্রতিকার ও প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) ডা. নাজমুল হাসান বলেন, অনেক চিকিৎসক হার্ট ফেইলরকে অ্যাজমা ভেবে চিকিৎসা করেন। তাই হার্ট ফেইলরের ক্লিনিকে রোগী রেফার্ড করলে পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে এই দুটিকে আলাদা করা যাবে এবং রোগী প্রকৃত চিকিৎসা পাবে। আমাদের কার্ডিওলজি বিভাগ এমনিতেই স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং হার্ট ফেইলর ক্লিনিক চালুর মাধ্যমে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হল।

ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ এফ এম শাখাওয়াত হোসেনে সভাপতিত্বে হৃদরোগ সম্পর্কে আলোচনা করেন উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ফারুকুল ইসলাম, হাসপাতালটির চিফ কনসালটেন্ট ডা. সেলিম মাহমুদ প্রমুখ।

আরও পড়ুন

এ সময় বক্তারা আদালতের রায় ও ডাক্তারের চিকিৎসা পত্র বাংলা ভাষায় লিপিবদ্ধ করার জন্য জোরালো দাবি জানান।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.