সংসদ নির্বাচনের তিন মাসেও ব্যয়ের হিসাব দেয়নি কেউ

117

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তিন মাসের বেশি সময় পার হয়ে গেলেও কোনো প্রার্থী ও দল নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব এখন পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনে (ইসি) জমা দেয়নি। এমনকি প্রার্থীরা নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে জমা দিয়েছেন কি দেয়নি সেটা জানতে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছেও কোনো চিঠি দেয়নি ইসি।প্রার্থীদের নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব জমা নেওয়ার ব্যাপারে ইসির তেমন আগ্রহ চোখে পড়েনি। যদিও অতীতে নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব আদায় করতে প্রার্থীদের চিঠি দিয়ে তাগিদ দেওয়ার নজির আছে। সবে মাত্র ইসি খোঁজ-খবর নেওয়া শুরু করেছে বলে জানিয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর। ভোট শেষে ১ জানুয়ারি বিজয়ী প্রার্থীদের গেজেট প্রকাশ করে ইসি। আইন অনুযায়ী, প্রার্থীদের নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব ৩১ জানুয়ারির মধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দেওয়ার কথা। আর এই হিসাব বিবরণী ইসিতে যে তারিখেই এসে পৌঁছাক না কেন, তা ৩১ জানুয়ারির মধ্যেই ডাকঘরে গিয়ে রেজিস্ট্রার্ড করতে হবে।

গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের (আরপিও) ৪৪ এর সি ধারা অনুযায়ী, সংসদ নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থীদের নাম গেজেট প্রকাশের পরবর্তী ৩০ দিনের মধ্যে প্রার্থীদের নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব বিবরণী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দিতে হয়। একই সময়ে হিসাব বিবরণীর একটি অনুলিপি সত্যায়িত করিয়ে ডাকযোগে (রেজিস্ট্রার্ড) ইসিতে পাঠাতে হবে।

এ ছাড়াও আইনের ৪৪ এর ডি ধারায় বলা আছে, কোনো দল ৯০ দিনের মধ্যে ব্যয়ের হিসাব জমা দিতে না পারলে ইসি তাদের সতর্ক করে নোটিশ দিয়ে পরবর্তী ৩০ দিনের মধ্যে হিসাব জমা দেওয়ার নির্দেশ দিতে পারবে। এই সময়ের মধ্যে কোনো দল হিসাব জমা দিতে ব্যর্থ হলে ইসি তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে হিসাব জমা দেওয়ার নির্দেশ দিতে পারবে। এই ধাপে ব্যর্থ হলে ইসি সেই দলের নিবন্ধন বাতিল করতে পারবে।

ব্যয়ের হিসাবের ব্যাপারে জানতে চাইলে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এনটিভি অনলাইনকে বলেন, এটা খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়। তার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছিল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থীর নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব আমরা পাইনি। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছেও জমা দেননি প্রার্থীরা। তবে এসব বিষয়ে খোঁজ-খবর নেওয়ার জন্য ইসির যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহম্মদ খানকে দায়িত্ব দিয়েছি।

জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, এই বিষয় নিয়ে আগামী কমিশন সভায় আলোচনা হওয়ার কথা আছে। প্রার্থীরা নির্দিষ্ট সময়ের ভেতরে ব্যয়ের হিসাব জমা না দিয়ে থাকলে এই ব্যাপারে আমরা উদ্যোগ নিলে তাদের কঠিন শাস্তি ভোগ করতে হবে। কী শাস্তি হবে কি না হবে তাও কমিশন সভায় নির্ধারিত হবে।

আরও পড়ুন

বিশেষ মেহমান হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন বিএম এর নোয়াখালী জেলার সভাপতি ডাঃ এম এ নোমান,চাটখিল কামিল (এম.এ) মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও উপজেলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া।

চাটখিলে ডিয়ার ছোয়াদ এজেন্সির হজ্জ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মেহেদী হাছান (রুবেল ভূঁইয়া) উপস্থিত নেতৃবৃন্দকে প্রতিষ্ঠানের চলমান উন্নয়ন এবং মাঠ সম্প্রসারণের কাজ সম্পর্কে অবগত করেন এবং মাদ্রাসা ক্যাম্পাস ঘুরিয়ে দেখান।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসার উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন-এইচ এম ইব্রাহিম

মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া বলেন,ঐতিহ্যবাহী চাটখিল কামিল মাদ্রাসা একটি শতবর্ষী প্রতিষ্ঠান।জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এ প্রতিষ্ঠানটি উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসা শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১টার দিকে বাতাসে লাশের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন দুর্গন্ধের উৎস খুঁজতে থাকে। খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে লামচর গ্রামের সর্দার বাড়ি সংলগ্ন ডোবায় অর্ধগলিত একটি মরদেহ দেখতে পায় তারা।

চাটখিলে বৃদ্ধের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

বেলায়েত হোসেন আশা করেন দলীয় নেতৃবৃন্দ ও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় সর্বসাধারনের ভালোবাসায় তিনি বিপুল ভোটে চাটখিল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন।

চাটখিলে সাংবাদিকদের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী বেলায়েত এর মতবিনিময়

Comments are closed.