ভালবাসা ও সম্মান দিলাম, এছাড়া কি দেয়ার আছে?

0 518

মালা দিব তোমার গলে ওগো মোদের প্রিয়। আদরে তাই নিও। থানায় আসলে মানুষ কিছুই চায় না। চায় শুধু পুলিশ কর্তা তার কথাটা যেন শোনে। এ যাবৎ থানায় এসে আমার কাছে কেউ দুধ, দই, কলা বা পানিও খেতে চায় নি। বলেছেন স্যার একটা অভিযোগ শোনেন। অনেকেই শোনে। অনেক বয়স্ক লোকও এস আই এমনকি এএসআই কেও স্যার বলে। কত সম্মান দেয়। অথচ আমাদেরই উচিত তাদের স্যার বলা। যাদের দেওয়া টাকায় বেতন হয়। আর যদি অন্য কিছু বলেন সেটাও তো তারাই দেয়। তারা যদি বুঝতো তাদের ঘামের টাকায় আমরা এসির মধ্যে থাকি তাহলে তারা টাক্স দিত না। এই সাধারণ মানুষগণ অন্য কোন সরকারি অফিসে যেয়ে এত সংখ্যক লোককে স্যার বলে না। তবুও অনেক দারগা সাহেবরা খুশি হয় না বা আমরা ওসি কেউ কেউ বিরক্ত হই। যাক এ গুলি নীতি কথা। আর বড় বড় কথা আমি কেন কেউ বিশ্বাস করে না।
ছবির বয়স্ক মানুষটি এসেছিল তার ভাইয়ের ছেলে ঝগড়ার সময় হাতে আঘাত করেছে। আমি তো হতবাক। নিশ্চুপ। মূর্তির মত। চাচাকে চেয়ারে বসায়ে জানতে চাইলাম। ঘটনা ভাইয়ের সাথে। একজন ভাতিজা তার বাবার বড় ভাইকে আঘাত করেছে। সেই ছেলেটা প্রাপ্ত বয়স্ক। তার কি কোন কান্ডজ্ঞান নাই? তার পরিবার কি এই শিক্ষা দেয়নি। সেটা দিতে হবে একজন থানার ওসি। এ দায়িত্ব অনেক কঠিন। অনেক যন্ত্রণার। এ বড়ই বেদনার, করুণ!
তো মানুষটি বলল, আমি এর বিচার চাই। আসলে আমি তো বিচার দিতে পারি না বিচারের দরজায় নিয়ে যেতে পারি। আর এই কাজে আমার সিপাহী, গাড়ি, তদবির, ঘুষ কোনটাই লাগছে না। আইনে জিডি হয়। কিন্তু মানুষটি আসছে তাকে অসম্মানিত করার বিষয়ে। সে জিডি মামলা চায় না। এটা আবার জন্য আরেক ঝামেলা পোহাতে হয়। আমর ইচ্ছা ছিল তাকে ধরে এনে ঐ একই কাজ করতে! কিন্তু তার সাথেই পুলিশ দিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে সমাধান হয়েছে। কিন্তু ভদ্রলোক তার কথা বলে পুলিশ নিয়ে গেছে এতে তার শক্তিহীন অসহায় র সাথে অত্যাচারের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় শক্তি তার পাশে ছিল।
আমার যদিও কাউকে আপ্যায়নের জন্য বাজেট নেই। তবুও তাকে চা খাওয়ানোর ইচ্ছা থাকলেও পারি নাই।
শুধু আমার কথা ভালবাসা ও সম্মানেই সে খুশী। এ বড়ই ক্ষমতা, বড়ই সহজ । আর এ ছাড়া কি ই বা দেওয়ার আছে আমার? হয়ত অন্য বিষয়ে অন্য কিছু। কিন্তু চাটখিলের মানুষ যদি তেমন সুযোগ দেয়। হাজারো সীমাবদ্ধতায় সে সুযোগের অপেক্ষায় থাকব। এ সুযোগ ব্যবহার করতে সাধু, সন্ন্যাসী বা হাজী হতে হয় না।

লেখক : ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, চাটখিল থানা, নোয়াখালী।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।