বিশ্বজুড়ে সাংবাদিক খুন বাড়ছে

66

বিশ্বজুড়ে চলতি বছর সাংবাদিক খুনের হার বেড়েছে। যুদ্ধ ও সংঘাতের ঝুঁকি কমে আসা সত্ত্বেও ২০১৮ সালে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সাংবাদিকরা আরো বেশি হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে। বুধবার গণমাধ্যম পর্যবেক্ষণকারী একটি সংস্থার প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।

দ্য কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট নামের ওই পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা আরো জানায়, চলতি বছর বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে নিহত ৫৩ সাংবাদিকের মধ্যে কেবলমাত্র পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে ৩৪ জন খুন হয়েছে।

নিউইয়র্ক ভিত্তিক সংস্থাটি আরো জানায়, ‘এক বছর আগের তুলনায় ২০১৮ সালে প্রায় দ্বিগুণ সাংবাদিক পেশাগত কারণে প্রতিশোধমূলক হত্যার শিকার হয়েছে।’

চলতি সপ্তাহে প্যারিস ভিত্তিক সংস্থা রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার একই ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্লগার, নগর সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মীসহ ৮০ জন সাংবাদিক খুন হয়েছে।
সিপিজে জানিয়েছে, কর্তব্য পালন করতে গিয়ে এ বছর তিন বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সাংবাদিক খুন হয়েছে। ২০১৭ সালে খুন হওয়া ৪৭ সাংবাদিকের মধ্যে ১৮ জনকে টার্গেট করে হত্যা করা হয়েছে।

প্রতিবেদনটিতে আরো বলা হয়েছে, ‘আফগানিস্তানে চরমপন্থীরা সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে বেশি হামলা চালায়। এটি সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে ভয়াবহ দেশ।’

আফগানিস্তানে এপ্রিল মাসে এক বোমা হামলায় কাবুলে এএফপি’র প্রধান শাহ মারাই ও আরো আট সাংবাদিক নিহত হন। ওই ঘটনায় মোট ২৫ জন নিহত হয়।

সিপিজে বলছে, সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সাংবাদিকদের অধিকার ও নিরাপত্তা সংরক্ষণে আন্তর্জাতিক নেতৃত্বের অভাবের বিষয়টি ফুটে উঠেছে।

সংস্থাটি আরো জানিয়েছে, তারা ২০১৮ সালে আরো ২৩ সাংবাদিকের হত্যাকাণ্ড তদন্ত করছে। তবে এখন পর্যন্ত পেশাগত কারণে তারা খুন হয়েছেন কিনা তা নিশ্চিত হতে পারেনি।

আরও পড়ুন

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.