বাবার শেষ ইচ্ছাপূরণে ঈদগাহের জন্য ৪ বিঘা জমি দান দুই হিন্দু বোনের

31

মৃত বাবার শেষ ইচ্ছাপূরণ করতে একটি ঈদগাহকে জমি দান করেছেন হিন্দু পরিবারের দুই বোন। চার বিঘা ওই জমির দাম প্রায় পৌনে দুই কোটি টাকা। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই উজ্জ্বল নিদর্শনের পর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে মুসলিমরা ঈদের দিন ওই ব্যক্তির আত্মার শান্তি কামনা করে প্রার্থনাও করেন।

ভারতের উত্তরাখণ্ড রাজ্যের উধম সিংনগর জেলার কাশিপুর শহরের সম্প্রীতির এই নিদর্শন মানুষের প্রশংসা কুড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার (৫ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তাসংস্থা পিটিআই এবং সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

 

 

ঈদগাহকে চার বিঘা জমি দান করা হিন্দু পরিবারের ওই দুই বোনের নাম সরোজ ও অনিতা। সংবাদমাধ্যম বলছে, কাশিপুর শহরের বাসিন্দা ব্রজনন্দন প্রসাদ রাস্তোগী ২০০৩ সালের জানুয়ারি মাসে মারা যান। মৃত্যুর আগে তিনি তার নিকটাত্মীয়দের কাছে জানান, নিজের চার বিঘা কৃষি জমি একটি ঈদগাহের জন্য দান করে যেতে চান তিনি। কিন্তু এই কথা দুই মেয়েকে জানানোর আগেই তিনি মারা যান।

তার দুই মেয়ে সরোজ এবং অনিতা সম্প্রতি আত্মীয়দের কাছ থেকে বাবার শেষ ইচ্ছার কথা জানতে পারেন। পরে ভাই রাকেশ রাস্তোগীর সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলেন দুই বোন। রাজি হন রাকেশও। এরপরই সকল প্রয়োজনীয় আইনী কাজ শেষ করে সেই জমি ঈদগাহকে দান করেন তারা।

ভারতীয় মুদ্রায় চার বিঘা ওই জমির দাম দাম দেড় কোটি রুপিরও বেশি। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় পৌনে দুই কোটি টাকা। রাকেশ বলেন, ‘বাবার শেষ ইচ্ছাকে সম্মান জানানো আমাদের কর্তব্য। আমার বোনেরা এমন কাজ করেছে যা বাবার আত্মাকে শান্তি দেবে।’

এই বিষয়ে ঈদগাহ কমিটির হাসিন খান বলেন, ‘দুই বোন সাম্প্রদায়িক ঐক্যের জীবন্ত উদাহরণ। ঈদগাহ কমিটি তাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবে। শিগগিরই দুই বোনকে সম্মানিত করা হবে।’

 

 

তিনি আরও জানান, জমিটি ইতোমধ্যে সীমানা প্রাচীর দিয়ে ঘেরা হয়েছে। তিনি বলেন, দেশ যখন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় ভুগছে, তখন এই দুই বোনের এমন মহৎ কাজ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

সংবাদমাধ্যম বলছে, সরোজ ও অনিতার বাবা ব্রজনন্দন প্রসাদ রাস্তোগী সকল ধর্মকে সম্মান করতেন। তিনি তার জমি দানের মাধ্যমে হিন্দু ও মুসলমানদের মধ্যে দৃঢ় সম্পর্ক গড়ে তুলতে চেয়েছিলেন। তবে নিজের এই ইচ্ছাপূরণের আগেই তিনি মারা যান।

মৃত্যুর আগে তিনি জমি ছেলে-মেয়েদের মধ্যে ভাগ করে দেন। ঈদগাহের জন্য সরোজ ও অনিতার জমি অংশ হিসেবে ছিল। বাবার মৃত্যুর প্রায় ২০ বছর পর এসে আত্মীয়দের কাছ থেকে ব্রজনন্দনের শেষ ইচ্ছার কথা জানতে পেরে অবশেষে পৌনে দুই কোটি টাকা মূল্যের এই জমি ঈদগাহে দান করলেন তারা।

আরও পড়ুন

এ সময় বক্তারা আদালতের রায় ও ডাক্তারের চিকিৎসা পত্র বাংলা ভাষায় লিপিবদ্ধ করার জন্য জোরালো দাবি জানান।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.