নোয়াখালী পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির চাটখিল ডিজিএম অফিস শতভাগ সাফল্যের পথে

239

চাটখিল ও সোনাইমুড়ী উপজেলার (আংশিক) নিয়ে চাটখিল পল্লীবিদ্যুৎ ডিজিএম অফিসের আওতা। ২০১৮ সালের মধ্যে এ অফিসের আওতায় সকল গ্রাম শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আসার মত অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। বর্তমানে চাটখিল পৌরসভা ও সোনাইমুড়ীর আংশিক নিয়ে ১৪৫ বর্গ কি. মি. এলাকার বিদ্যুতের আওতায় আসা গ্রামের সংখ্যা সোনাইমুড়ী উপজেলার ১২টি সহ ১৬৩টি। হালিমাদিঘীর পাড় ১৫ এমভিএ ও নয়নপুর ১০ এমভিএসহ উপকেন্দ্রের দুইটি। লাইনের পরিমাণ ১০৫৪.৩৫ কি. মি। সংযোগকৃত গ্রাহকের সংখ্যা ৭২৮৮৮। নির্মাণ কাজ চলছে ১০ এমভিএ পরকোট-দশঘরিয়া উপকেন্দ্রের।
চাটখিল জোনাল অফিসের ডিজিএম বলেন, ‘ বর্তমান সরকার উন্নয়নমুখী সরকার। এই সরকারের উন্নয়নের একটি ধাপ হচ্ছে বিদ্যুৎ। এই সরকারের মূল পরিকল্পণা হচ্ছে বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুতায়নের ব্যবস্থা করা। সে লক্ষ্যে আমি ও আমার অফিসের সকল কর্মকর্তা কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া আমাদের নির্মিতব্য উপকেন্দ্রের কাজ এগিয়ে চললে। খুব দ্রুত এটা চালু করা হবে। এতে চাটখিল উপজেলার মানুষের বিদ্যুতের আর কোন সমস্যা থাকবে না।’

আরও পড়ুন

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.