ঢাকা-নোয়াখালী রুটে চালু হচ্ছে নতুন ট্রেন সুবর্ণচর এক্সপ্রেস

264

ঢাকা-নোয়াখালী রুটে দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর নতুন আন্তঃনগর ট্রেন চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। নতুন ট্রেনটির নাম ‘সুবর্ণচর এক্সপ্রেস’ নির্ধারণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব তৌফিক ইমাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় ঢাকা-নোয়াখালী রুটের নতুন আন্তঃনগর ট্রেনের নাম সুবর্ণচর এক্সপ্রেস প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক অনুমোদন হয়েছে।এ বিষয়ে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।সুবর্ণচর এক্সপ্রেস নামে নতুন এই ট্রেন পেয়ে নোয়াখালী বাসি উপকৃত হয়েছে।

এর আগে গত ২৯ অক্টোবর চট্টগ্রামের চিফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিকী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় যাত্রী সাধারণের স্বাচ্ছন্দে ভ্রমণের নিমিত্তে ঢাকা-নোয়াখালী-ঢাকা রুটে চায়না কোচ দ্বারা ১ জোড়া নতুন আন্তঃনগর ট্রেন পরিচালনা করা যেতে পারে।

নতুন এ ট্রেনের নম্বর ৮১৭/৮১৮। ১৪ কোচের নতুন এই ট্রেনে মোট আসন থাকবে ৬৭৯টি। সাপ্তাহিক বন্ধ শুক্রবার। প্রস্তাবিত ট্রেনের সময়সূচিতে বলা হয়েছে, ৮১৭ নম্বর ট্রেনটি নোয়াখালী ছাড়বে ২টা ৩০ মিনিটে ও ঢাকা পৌঁছাবে ৮টা ১০ মিনিটে। ৮১৮ নম্বর ট্রেনটি ঢাকা ছাড়বে সকাল ৮টায় ও নোয়াখালী পৌঁছাবে ১টা ৩০ মিনিটে।

প্রস্তাবিত স্টেশনের মধ্যে আছে ঢাকা বিমানবন্দর, নরসিংদী, ভৈরব বাজার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, আখাউড়া, কসবা, কুমিল্লা, লাকসাম, নাথের পেটুয়া, সোনাইমুড়ি, বজরা, চৌমুহনী ও মাইজদী।

উল্লেখ্য, ১৯৮৬ সালে ঢাকা-নোয়াখালী রেলপথে আন্তঃনগর উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন চালু হয়। চালু হওয়ার পর থেকে কয়েক বছর যাত্রী সেবা ভালো থাকলেও ১৯৯০ সালের পর থেকে শুরু হয় ভোগান্তি।সুবর্ণচর এক্সপ্রেস ট্রেন গুলি চালু হলে জনসাধারণের ভোগান্তি কমবে এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

আরও পড়ুন

বিশেষ মেহমান হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন বিএম এর নোয়াখালী জেলার সভাপতি ডাঃ এম এ নোমান,চাটখিল কামিল (এম.এ) মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও উপজেলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া।

চাটখিলে ডিয়ার ছোয়াদ এজেন্সির হজ্জ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মেহেদী হাছান (রুবেল ভূঁইয়া) উপস্থিত নেতৃবৃন্দকে প্রতিষ্ঠানের চলমান উন্নয়ন এবং মাঠ সম্প্রসারণের কাজ সম্পর্কে অবগত করেন এবং মাদ্রাসা ক্যাম্পাস ঘুরিয়ে দেখান।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসার উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন-এইচ এম ইব্রাহিম

মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মেহেদী হাছান রুবেল ভূঁইয়া বলেন,ঐতিহ্যবাহী চাটখিল কামিল মাদ্রাসা একটি শতবর্ষী প্রতিষ্ঠান।জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এ প্রতিষ্ঠানটি উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসা শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুর ১টার দিকে বাতাসে লাশের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন দুর্গন্ধের উৎস খুঁজতে থাকে। খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে লামচর গ্রামের সর্দার বাড়ি সংলগ্ন ডোবায় অর্ধগলিত একটি মরদেহ দেখতে পায় তারা।

চাটখিলে বৃদ্ধের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

বেলায়েত হোসেন আশা করেন দলীয় নেতৃবৃন্দ ও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় সর্বসাধারনের ভালোবাসায় তিনি বিপুল ভোটে চাটখিল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন।

চাটখিলে সাংবাদিকদের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী বেলায়েত এর মতবিনিময়

Comments are closed.