ছেলের বউকে ৩০০ কোটি মূল্যের গিফট!

183

জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজন, বিলাসিতা আর নতুনত্ব দেখানোর ক্ষেত্রে ভারতের ধনকুবের আম্বানি পরিবার কখনোই আপনাকে নিরাশ করবে না। আম্বানিকন্যা ইশা ও আরেক ধনকুবেরের সন্তান আনন্দ পরিমলের বিলাসবহুল বিয়ের পর ফের এ পরিবারের আরেকটি ব্যয়বহুল বিয়ে আলোচনায় এসেছে। আর তা হলো আম্বানিপুত্র আকাশ আম্বানি ও শ্লোকা মেহতার বিয়ে।

খবরে প্রকাশ, ধনকুবের মুকেশ আম্বানি ও নিতা আম্বানি তাঁদের মেয়ের বিয়েতে কমপক্ষে ১১০ কোটি রুপি খরচ করেছিলেন। আর ছেলে আকাশ আম্বানির বিয়েতে খরচ বহুগুণে ছাড়িয়ে গেছে। সুইজারল্যান্ডে আয়োজন করা হয়েছিল আকাশ-শ্লোকার অভিজাত বিবাহপূর্ব আয়োজন। একটি বিলাসবহুল হোটেল ভাড়া করা হয়েছিল ৫০০ জন অতিথির জন্য, যে হোটেলের সবচেয়ে কমদামি রুমভাড়া প্রতিদিন প্রায় এক লাখ রুপি।

ভারতের জনপ্রিয় নারীবিষয়ক সাময়িকী ওম্যান্স এরার প্রতিবেদন জানিয়েছে, নিতা আম্বানি তাঁর পুত্রবধূকে সূক্ষ্ম ও সুচারু কারুকাজযুক্ত একটি ডায়মন্ড সেট উপহার দিয়েছেন। জানেন, সেই উপহারের দাম কত?হ্যাঁ, পুত্রবধূকে উপহার দেওয়া শাশুড়ির হীরার সেটটির মূল্য ৩০০ কোটি রুপি!

নিতা আম্বানি তাঁর ছেলের বউকে এমন কিছু উপহার দিতে চেয়েছিলেন যা হবে ইউনিক ও স্পেশাল। সেই ইচ্ছে থেকেই এমন সেট উপহার দেন, যা বানানো হয়েছে দুনিয়ার সবচেয়ে দামি হীরা থেকে। এই ডায়মন্ড সেটটির নাম লা’ইনকম্পেরেবল, অর্থাৎ যার তুলনা হয় না। ডায়মন্ড সেটটির কাট ও ডিজাইন খুবই নিখুঁত ও কোনোভাবেই নকল করা যাবে না।

প্রতিবেদনটি আরো জানাচ্ছে, ননদ ইশা আম্বানি তাঁর ভ্রাতৃবধূ শ্লোকা মেহতাকে একটি বাংলো উপহার দিয়েছেন, যেখানে মূলত ইশার শৈশব কেটেছে। নিতা আম্বানি আগে থেকেই ভেবে রেখেছিলেন তাঁর সব গহনা পুত্রবধূর নামে দিয়ে দেবেন। কিন্তু পরে বিশেষ কিছু উপহার দিতে চান, সেটিই এই ডায়মন্ড সেট।

মুকেশপুত্র আকাশ ও রাসেল মেহতার কন্যা শ্লোকার বিয়েতে নিজেদের ইন্ডাস্ট্রির সবাই উপস্থিত ছিলেন। আলোচিত বিয়েটি ইশা আম্বানির ব্যয়বহুল বিয়ের পর পরই আয়োজন করা হয়। দুটি বিয়েই মূলত ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিয়ের কাতারে পড়ে। সূত্র : ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস

আরও পড়ুন

এ সময় বক্তারা আদালতের রায় ও ডাক্তারের চিকিৎসা পত্র বাংলা ভাষায় লিপিবদ্ধ করার জন্য জোরালো দাবি জানান।

চাটখিল কামিল মাদ্রাসায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.