চুরির অপবাদে বৃদ্ধাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

195

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে চুরির অপবাদে এক বৃদ্ধাকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। এতে স্থানীয়রা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে।
নির্যাতনের শিকার বেলুয়া খাতুন উপজেলার আলীপুরের শহিদুল্লাহর স্ত্রী। ঘটনার পর থেকেই নির্যাতনকারীরা পলাতক রয়েছে।

ভুক্তভোগীর স্বামী শহিদুল্লাহ জানান, রোববার দক্ষিণ পাড়ার মিজান ও সুমন তাদের জায়গায় বেড়া দিতে যায়। এ সময় বেলুয়া খাতুন বাধা দিলে তাকে আক্রমণ করে মিজান ও সুমনের স্ত্রী কাজল বেগম ও রোজিনা বেগম। পরে তারা বেলুয়া খাতুনকে বাড়ির উঠানে গাছের সঙ্গে বেঁধে মোবাইল ও টাকা চুরির অপরাধে মারধর করে।

আহত বেলুয়া খাতুন বলেন, আমাকে প্রথমে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে। পরে মোটা দড়ি দিয়ে বেঁধে মাটিতে শুইয়ে রাখে। দখলবাজির ঘটনা চাপা দিতে তারা মোবাইল ও টাকা চুরির মিথ্যা অপবাদ দিয়েছে।

অভিযুক্ত সুমনের স্ত্রী রোজিনা বেগম বলেন, আমাদের সঙ্গে তাদের জায়গা নিয়ে বিরোধ দীর্ঘদিনের। আমার স্বামী ও ভাসুর উত্তেজিত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

শাহরাস্তি থানার ওসি মো. শাহ আলম জানান, এসআই নজরুল নির্যাতিতা নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর স্বামী আদালতে মামলা করেছেন। আদালতের নথি পেলেই দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন

অল্পদিনের মধ্যেই এখানকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড গতিশীল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কোনো অন্যায়, অবিচার, অনিয়ম ও চাঁদাবাজ আমার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

নিজ এলাকায় জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন এইচ এম ইব্রাহিম এমপি

মফস্বলে সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও নোয়াখালী-১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম।

মফস্বল সাংবাদিকতা করা একটা চ্যালেঞ্জ – এইচ এম ইব্রাহিম

এইচ এম ইব্রাহিম বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার অসুবিধাগ্রস্থ মানুষদের মাঝে অতীতের ন্যায় এবারও আমি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছি। আমার নেতাকর্মীদের মাধ্যমে আমি প্রায় পঞ্চাশ হাজার পরিবারের কাছে এই শীতবস্ত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছি।

নোয়াখালী-১ আসনে এইচ এম ইব্রাহিম এমপির শীতবস্ত্র বিতরণ

গ্রেপ্তার হওয়া মোশারফ হোসেন টিটু (২২) কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লাতু সওদাগর বাড়ির মৃত মিয়াধনের ছেলে। সে পেশায় একজন মোবাইল মেকানিক।

কবিরহাটে ভাবির ব্যক্তিগত ভিডিও নিয়ে দেবর গ্রেপ্তার

Comments are closed.